ই-পেপার সোমবার ১৪ নভেম্বর ২০২২
ই-পেপার |  সদস্য হোন |  পডকাস্ট |  গুগলী |  ডিসকাউন্ট শপ
শনিবার ১৫ জুন ২০২৪ ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
য‌শো‌রে পু‌লিশের মোটরসাই‌কেল ঠিক কর‌তে অপারগতা মেকা‌নিক‌কে গু‌লি
জুবা‌য়ের‌ হো‌সেন, য‌শোর
প্রকাশ: Wednesday, 5 June, 2024, 9:26 PM

য‌শো‌রে পু‌লিশের মোটরসাই‌কেল ঠিক কর‌তে অপারগতা মেকা‌নিক‌কে গু‌লি

য‌শো‌রে পু‌লিশের মোটরসাই‌কেল ঠিক কর‌তে অপারগতা মেকা‌নিক‌কে গু‌লি

পু‌লিশ‌কে বলা হয় জনগ‌ণের বন্ধু। কিন্তু সেই বন্ধুই য‌দি  হয় জনগ‌ণের শত্রু তাহ‌লে ব‌্যাপারটা  কেমন হয়? ঠিক তেম‌নি এক‌টি ঘটনার অ‌ভি‌যোগ উ‌ঠে‌ছে জনগ‌ণের বন্ধু যশোরের ঝিকরগাছার শিওরদাহ পুলিশ ফাঁড়ি কনস্টেবল রিকন হো‌সে‌নের বিরু‌দ্ধে।

জানা গে‌ছে, কনস্টেবল রিকন হো‌সে‌নের মোটরসাই‌কে‌লে ত্রু‌টি দেখা দি‌লে তার কর্মস্থল সংলগ্ন শিওরদাহ বাজা‌রে রিপ‌নের মোটরসাই‌কে‌লের দোকা‌নে মোটরসাই‌কেল ঠিক কর‌তে আ‌সে। মেকা‌নিক রিপন মোটরসাইকেলটি ঠিক করে দিতে অপারগতা প্রকাশ কর‌লে পু‌লিশ ক‌নেস্টবল রিকন হো‌সেন ক্ষিপ্ত হ‌য়ে তার কা‌ছে থাকা অস্ত্র দি‌য়ে গু‌লি ক‌রে। ত‌বে গু‌লি‌টি লক্ষ‌্যভ্রষ্ট হ‌লে মেকানিককে ‌মে‌রে মারাত্মক জখম ক‌রে পুলিশ ক‌নেস্টবল।

মঙ্গলবার (৪ জুন) সকাল সাড়ে আটটার দিকে ঘটনাটি ঘটেছে শিওরদাহ পুলিশ ফাঁড়ি সংলগ্ন শিওরদাহ বাজারে। অভিযুক্ত ওই পুলিশ সদস্যের নাম রিকন হোসেন, তিনি শিওরদাহ পুলিশ ফাঁড়িতে কনস্টেবল পদে কর্মরত আছেন। উন্ধতন পুলিশ কর্মকর্তাদের নির্দেশে ওই পুলিশকে ক্লোজ করা হয়েছে।

এ ঘটনায় ভুক্তভোগী রিপন হোসেন যশোর সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। তিনি শিওরদাহ গ্রামের মতিয়ার হোসেনের ছেলে।

এলাকাবাসী সুত্র জানিয়েছে, বাজারে রিপনের তরকারির দোকান আছে। পাশাপাশি তিনি মোটরসাইকেল ঠিক করার কাজ করতেন। গুলি করার আগে তাকে লাঠি দিয়ে বেদম মারা হয়। তবে গুলি লক্ষভ্রষ্ট হওয়ায় তার শরীরে লাগেনি। লাঠির আঘাতে তার কান ফেটে রক্তাক্ত হয়েছে। এ ঘটনায় বিক্ষুব্ধ জনতা ওই পুলিশের মোটরসাইকেল ভাংচুর করে এবং ফাঁড়ির সামনে অবস্থান নেয়। পরে নাভারণ সার্কেলের এএসপি নিশাত আল নাহিয়ান এবং ঝিকরগাছা থানার ওসি কামাল হোসেন ভূঁইয়া ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

স্থানীয়রা জানান, মঙ্গলবার সকালে ওই পুলিশ সদস্যের মোটরসাইকেল স্টার্ট হচ্ছিলো না। শিওরদাহ বাজারের মেকানিক রিপনের কাছে আনলে তিনি জানান এটা ঠিক করতে পারবেন না, ভাল মেকানিক দেখাতে হবে। এতেই ক্ষিপ্ত হয়ে ওই পুলিশ সদস্য তাকে লাঠি দিয়ে বেদম মারেন। পরে স্থানীয়রা এগিয়ে আসলে রাইফেল উচিয়ে গুলি করতে যান। তবে পাশের এক দোকানী রাইফেলের নল ধরে ফেললে গুলি লক্ষভ্রষ্ট হয়। তবে এ ঘটনায় গুলির বারুদের আগুনে পানিসারা গ্রামের আজিজ নামের এক ভ্যানচালক আহত হয়েছেন। তার ডান কাঁধের একটি অংশ পুড়ে গেছে বলে স্থানীয়রা জানান।

প্রত্যক্ষদর্শী ও রাইফেলের নল ধরে ফেলা দোকানী তুষার বলেন, ‘আমি ওষুধ আনতে গেছিলাম। গিয়ে দেখি ওই পুলিশ লাঠি দিয়ে রিপনকে মারছে আর দোকান থেকে বের হতে বলছে। এসময় সে হুমকি দিতে থাকে বের না হলে গুলি করবে। পরে আমি রাইফেলের বাট ধরে ফেলায় সে গুলি করলেও সেটা লক্ষভ্রষ্ট হয়ে পাশের পাথরের কুচির স্তুপে লাগে'।প্রত্যক্ষদর্শী রাজমিস্ত্রী তাইজেল হোসেন বলেন, 'রিপনকে মারতে মারতে ওই পুলিশ বলে দোকান থেকে বের না হলে গুলি করে দেব। আর আশেপাশের লোকজনকে হুমকি দিতে থাকে এগোলেই গুলি করবে। পরে সে গুলি করে'।ঘটনাস্থলের পাশের এক দোকানী বলেন, 'আমি এখানে আসতে আসতে দেখি তুষার ওই পুলিশের রাইফেল ধরে রেখেছে আর পুলিশ চারপাশে রাইফেল ঘুরাচ্ছে আর বলছে গুলি করে দেব। আমি যেতে না যেতেই সে গুলি করে দেয়'।

ভুক্তভোগী রিপনের বাবা মতিয়ার হোসেন বলেন, 'আমার ছেলেকে বিনা অন্যায়ে পুলিশ মেরেছে। সে মেকানিক না, তরকারি বিক্রি করে। তবে টুকটাক মোটরসাইকেলের কাজ জানে। ওর অপরাধ শুধু বলেছে এই কাজ আমি করতে পারবোনা। এতেই সাদা লাঠি দিয়ে ছেলেকে মেরেছে, দোকান ভাঙচুর করেছে। পাশের এক দোকানদার বন্দুক ধরে ফেলায় ওর গায়ে গুলি লাগেনি'।ঝিকরগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামাল হোসেন ভূঁইয়া বলেন, 'আমাদের একজন পুলিশ সদস্য যশোরে ডিউটিতে যাচ্ছিলো। পথিমধ্যে তার মোটরসাইকেল নষ্ট হলে সে শিওরদাহ বাজারে গ্যারেজে যায়। সেখানে লোকজনের সাথে তার কথা কাটাকাটি, ধাক্কাধাক্কি, হাতাহাতি হয়। পরবর্তীতে ওর কাছে থাকা একটি রাইফেল থেকে অসাবধানবশত গুলি বের হয়ে যায়, যেটাকে আমরা মিসফায়ার বলি। পরে এটা নিয়ে খুব উত্তেজনার সৃষ্টি হয়, এলাকার লোক উত্তেজিত হয়। সিনিয়র অফিসারসহ আমরা সেখানে যাই, ক্যাম্প থেকে ওকে আমরা পুলিশ লাইনে নিয়ে আসি। ওর কাছ থেকে অস্ত্র ও গুলি সিজ করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে'।

� পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ �







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: নাজমুল হক শ্যামল
দৈনিক নতুন সময়, গ্রীন ট্রেড পয়েন্ট, ৭ বীর উত্তম এ কে খন্দকার রোড, মহাখালী বা/এ, ঢাকা ১২১২।
ফোন: ৫৮৩১২৮৮৮, ০১৯৯৪ ৬৬৬০৮৯, ইমেইল: [email protected]
কপিরাইট © দৈনিক নতুন সময় সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | Developed By: i2soft
DMCA.com Protection Status