ই-পেপার সোমবার ১৪ নভেম্বর ২০২২
ই-পেপার |  সদস্য হোন |  পডকাস্ট |  গুগলী |  ডিসকাউন্ট শপ
সোমবার ২৪ জুন ২০২৪ ১০ আষাঢ় ১৪৩১
আসলে বেনজীর আহমেদ এখন কোথায় আছেন?
নতুন সময় ডেস্ক
প্রকাশ: Friday, 31 May, 2024, 2:10 AM
সর্বশেষ আপডেট: Friday, 31 May, 2024, 9:44 AM

আসলে বেনজীর আহমেদ এখন কোথায় আছেন?

আসলে বেনজীর আহমেদ এখন কোথায় আছেন?

দুর্নীতির পাহাড় প্রকাশ হওয়ার পর আলোচনার তুমুল কেন্দ্রবিন্দতে এখন সাবেক আইজিপি ও র‌্যাব প্রধান বেনজীর আহমেদ। তাঁর স্থাবর ও অস্থাবর সম্পত্তি ক্রোক ও ফ্রিজ করার প্রক্রিয়া শুরু করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন-দুদক। ইতোমধ্যে দুদক তাঁকে ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের তলব করেছে।

চলতি মাসে একটি জাতীয় দৈনিকে বেনজীর আহমেদের 'অবৈধভাবে অর্জিত সম্পদ' নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশের পর পরিস্থিতি সাবেক পুলিশ-প্রধানের প্রতিকূলে চলে গেছে। এখন গণমাধ্যমের নিয়মিত প্রতিবেদন, দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) পদক্ষেপ এবং আদালতের আদেশের সঙ্গে অভিযোগ ও অনুসন্ধানের বন্যার মুখে পড়েছেন প্রাক্তন এ সরকারি কর্মকর্তা।

কিন্তু বেনজীর আহমেদ এখন কোথায় আছেন?

সালমান এফ রহমান ও ওবায়দুল কাদেরের মতো সরকারের কর্তাব্যক্তিরা জোরালো ইঙ্গিত দিয়েছেন যে, বেনজীর আহমেদ তদন্ত ও মামলার মুখোমুখি হওয়ার সময় বিশেষ 'ট্রিটমেন্ট' পাবেন না।

আদালত তার সম্পদ বাজেয়াপ্ত এবং ব্যাংক অ্যাকাউন্ট জব্দ [ফ্রিজ] করার নির্দেশ দিয়েছেন। বেনজীর, তার স্ত্রী ও তিন মেয়েকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য প্রধান কার্যালয়ে তলব করেছে দুদক।

ক্রমবর্ধমান এসব চাপ সত্ত্বেও প্রাক্তন পুলিশ-প্রধান স্পষ্টতই এখন পর্যন্ত নীরব রয়েছেন।

তার দেশ ছেড়ে পালিয়ে যাওয়া নিয়ে কানাঘুষা চলছে। পুলিশের স্পেশাল ব্রাঞ্চ এবং তার ঘনিষ্ঠজন এ দুপক্ষের কাছ থেকে পাওয়া তথ্য বেনজীরের বর্তমান অবস্থান সম্পর্কে পরস্পরবিরোধী দাবি তৈরি করছে। কেউ দাবি করছে, বেনজীর এখনো বাংলাদেশে আছেন এবং আইনি প্রক্রিয়ার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন। অন্যদের ধারণা, তিনি ইতোমধ্যে বিদেশ চলে গেছেন।

তার ঘনিষ্ঠ ব্যক্তিদের মতে, বেনজীর আহমেদ তার আইনজীবী এবং উপদেষ্টাদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ বজায় রাখছেন।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে তার এক ঘনিষ্ঠ বন্ধু টিবিএসকে বলেন, 'সম্পত্তি বাজেয়াপ্তকরণ এবং ব্যাংক হিসাব জব্দ করার বিষয়ে বিচারিক আদালতের সিদ্ধান্ত স্থগিত করার জন্য রিট দায়ের করার ইচ্ছায় বেনজীর সম্প্রতি সুপ্রিম কোর্টের প্রভাবশালী আইনজীবীদের সঙ্গে যোগাযোগ করেছিলেন। তবে তিনি সে পরিকল্পনা বাতিল করে এখন উচ্চপদস্থ সরকারি কর্মকর্তাদের সঙ্গে দেখা করার জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা করছেন।'

তবে ৪ মে সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে স্ত্রী ও তিন মেয়েকে নিয়ে তিনি শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ত্যাগ করেন বলে সূত্রটি উল্লেখ করেছে। বর্তমানে স্ত্রী জিশান মির্জার চিকিৎসার জন্য বেনজীর আহমেদ সিঙ্গাপুরে অবস্থান করছেন।

তিনি দেশে ফিরেছেন কি না তা নিশ্চিত করতে পারেনি সূত্রটি।

বেনজীর পরিবারের ঘনিষ্ঠ আরেকটি সূত্র জানায়, 'দুদকের তলবের নির্ধারিত তারিখে তিনি [বেনজীর] অবশ্যই হাজির হবেন, তবে তার স্ত্রী ও কন্যারাও দুদকের সামনে হাজির হবেন কি না তা অনিশ্চিত।'

কমিশন সূত্র টিবিএসকে জানিয়েছে, দুদক বেনজীরকে একটি নোটিশ পাঠিয়ে তাকে ৬ জুন এবং তার স্ত্রী ও সন্তানদের ৯ জুন কমিশনের কার্যালয়ে উপস্থিত হতে বলেছে।

বেনজীরের পরিবারের একজন ঘনিষ্ঠ ব্যক্তি বলেন, 'সকালে ফজরের নামাজের পরে গুলশান ইয়ুথ ক্লাবে জগিং করতে যেতেন বেনজীর আহমেদ। সেখানে তিনি ব্যবসায়িক খাতের কিছু বন্ধুদের সঙ্গে দেখা করতেন। তার এসব বন্ধুরা বড় বড় কোম্পানির মালিক। তবে এখন আর তিনি বাড়ি থেকে বেরোন না।'

বেনজীরের প্রাতঃভ্রমণের সঙ্গী কিছু ব্যবসায়ীর মতে, বেনজীর আহমেদের পরিবার এখন দুবাইতে অবস্থান করছে।

'মার্কিন ট্রেজারি ডিপার্টমেন্ট তার বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপের পর তিনি [বেনজীর] তার বড় মেয়ে এবং জামাইকে দুবাইয়ে বিভিন্ন ব্যবসায় প্রতিষ্ঠিত করেন। তারা মিয়ামি থেকে দুবাইতে স্থানান্তরিত হন এবং সেখানে বিনিয়োগ করেন। নিষেধাজ্ঞার কারণে তার ছোট মেয়েকে যুক্তরাষ্ট্রের বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ালেখা ছাড়তে হয়েছিল। তিনি এখন যুক্তরাজ্যে অধ্যয়ন করছেন। এ মুহূর্তে তিনি দুবাইতে আছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে,' বলেছে একটি সূত্র।

২০২০ সালের ১৫ এপ্রিল থেকে ২০২২ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত আইজিপি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন বেনজীর আহমেদ। এর আগে তিনি ডিএমপি কমিশনার ও র‌্যাব ডিজি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন।

আইজিপি পদে থাকার সময় মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগে ২০২১ সালের ডিসেম্বরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র কর্তৃক নিষেধাজ্ঞার মুখে পড়েন বেনজীর আহমেদ। সে সময় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর আরও কয়েকজন ব্যক্তিও নিষেধাজ্ঞার শিকার হন।

অবসরে যাওয়ার পর থেকে বেনজীর আহমেদ প্রাথমিকভাবে তার কর্মজীবন এবং পুলিশ-জীবন সম্পর্কে দুটি বই লেখেন। এর একটি তার আত্মজীবনী। এছাড়া গোপালগঞ্জে তার 'সাভানা ইকো রিসোর্ট'-এও সময় দিয়েছিলেন তিনি।

বেনজীরের আরেক আস্থাভাজন বন্ধু বলেন, 'তিনি এখন রাজধানীর গুলশান ১ নম্বরের র‍্যানকন আইকন টাওয়ারের অ্যাপার্টমেন্টে থাকেন। তিনি খুব কমই বাইরে যান।'

� পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ �







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: নাজমুল হক শ্যামল
দৈনিক নতুন সময়, গ্রীন ট্রেড পয়েন্ট, ৭ বীর উত্তম এ কে খন্দকার রোড, মহাখালী বা/এ, ঢাকা ১২১২।
ফোন: ৫৮৩১২৮৮৮, ০১৯৯৪ ৬৬৬০৮৯, ইমেইল: [email protected]
কপিরাইট © দৈনিক নতুন সময় সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | Developed By: i2soft
DMCA.com Protection Status