ই-পেপার সোমবার ১৪ নভেম্বর ২০২২
ই-পেপার |  সদস্য হোন |  পডকাস্ট |  গুগলী |  ডিসকাউন্ট শপ
সোমবার ২২ জুলাই ২০২৪ ৬ শ্রাবণ ১৪৩১
কুড়িগ্রামে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি, বিপদসীমা ছুঁইছুঁই করেছে নদীর পানি
আহম্মেদুল কবির, কুড়িগ্রাম
প্রকাশ: Thursday, 4 July, 2024, 3:11 PM

কুড়িগ্রামে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি, বিপদসীমা ছুঁইছুঁই করেছে নদীর পানি

কুড়িগ্রামে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি, বিপদসীমা ছুঁইছুঁই করেছে নদীর পানি

কুড়িগ্রামে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে। বিপদসীমা ছুঁইছুঁই করেছে প্রায় সবকটি নদীর পানি।আজ  ০৪ জুলাই বৃহস্পতিবার সকালে কুড়িগ্রাম পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) নির্বাহী প্রকৌশলী মো. রাকিবুল হাসান জানান, আজ বৃহস্পতিবার ব্রহ্মপুত্রের পানি চিলমারী পয়েন্টে বেড়ে গিয়ে বিপদসীমার ৫৯ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এছাড়া নুনখাওয়া পয়েন্টে ৫১ সেন্টিমিটার এবং হাতিয়া পয়েন্ট বিপদসীমার ৬৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। সেতু পয়েন্টে ধরলার পানিও বইছে বিপদসীমার উপর দিয়ে। তবে কাউনিয়া পয়েন্টে তিস্তার পানি, পাটেশ্বরী পয়েন্টে দুধকুমার এবং শিমুলবাড়ী পয়েন্টে ধরলা নদীর পানি সামান্য হ্রাস পেয়ে বিপদসীমার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।


ব্রহ্মপুত্র নদীর পানি তিনটি পয়েন্টে বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। তবে অন্য নদ-নদীর পানি বিপদসীমার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।জেলার ভিতর দিয়ে প্রবাহিত , অন্যান্য নদীর মধ্যে দুধকুমর, ফুলকুমর, সোনাভরি, হলদিয়া, নীলকমল, গংগাধর, শিয়ালদহ, জিঞ্জিরাম, বোয়ালমারী,সংকোশ,ধরণী, কালজানি ও জালছিড়া নদীর পানি বিপদসীমার কাছাকাছি রয়েছে।

এরি মধ্যে ভারত থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল এবং অব্যাহত বৃষ্টির কারণে নদী তীরবর্তী জেলার সবকটি চরাঞ্চল পানিতে ডুবে গেছে। এই পরিস্থিতিতে চরাঞ্চলে বসবাসকারী বেশির ভাগ পরিবারগুলো আশ্রয়কেন্দ্র যারার প্রস্তুতি নিয়েছে। কোন কোন এলাকায় জেলা ও উপজেলা প্রশাসন থেকে আশ্রয়কেন্দ্রে যাবার নির্দেশ দিয়েছে। গত কয়েকদিন অবিরাম বৃষ্টির কারণে পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। নদী তীরবর্তী প্রায় সকল নিম্নাঞ্চল পানিতে ডুবে গেছে। ঘরবাড়িতে পানি প্রবেশ করায় মানুষজনের কষ্ট বেড়েছে। গৃহপালিত পশু, বয়োবৃদ্ধ মানুষজন, শিশু, নারিদের মধ্যে ভয়ভীতি দেখা দিয়েছে। নপরিবারের কর্মজীবী মানুষজন কাজের বের হতে না পারায় পরিবারগুলোতে খাদ্যের অভাব দেখা দিয়েছে। তবে কোন দুর্যোগ ঘোষণা করা হয়নি। জেলা প্রশাসন সর্বোচ্চ শতর্কবস্থায় রয়েছে বলে জানানো হয়েছে। এলাকা ভিত্তিক দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটিও প্রস্তুত রয়েছে। সার্বিক পরিস্থিতিতে উপজেলা পরিষদ, ইউনিয়ন পরিষদগুলোকে বন্যা পরিস্থিতি মোকাবেলায় সক্রিয় রাখা হয়েছে। ইতোমধ্যে আশ্রায় কেন্দ্রগুলোকে বসবাসের উপযোগী করে রাখা হয়েছে। তবে অব্যাহত বৃষ্টি না হলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে বলে আবহাওয়া অফিস সূত্রে জানা গেছে।

� পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ �







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: নাজমুল হক শ্যামল
দৈনিক নতুন সময়, গ্রীন ট্রেড পয়েন্ট, ৭ বীর উত্তম এ কে খন্দকার রোড, মহাখালী বা/এ, ঢাকা ১২১২।
ফোন: ৫৮৩১২৮৮৮, ০১৯৯৪ ৬৬৬০৮৯, ইমেইল: [email protected]
কপিরাইট © দৈনিক নতুন সময় সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | Developed By: i2soft
DMCA.com Protection Status