ই-পেপার সোমবার ১৪ নভেম্বর ২০২২
ই-পেপার |  সদস্য হোন |  পডকাস্ট |  গুগলী |  ডিসকাউন্ট শপ
সোমবার ২৪ জুন ২০২৪ ১০ আষাঢ় ১৪৩১
কাবিনে কুমারী শব্দটি বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে মানববন্ধন
লিটন গাজী
প্রকাশ: Wednesday, 29 May, 2024, 5:53 PM
সর্বশেষ আপডেট: Wednesday, 29 May, 2024, 6:07 PM

কাবিনে কুমারী শব্দটি বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে মানববন্ধন

কাবিনে কুমারী শব্দটি বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে মানববন্ধন

নিকাহ নামার ৫ নং কলামের কুমারী শব্দটি তুলে দেওয়ার সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে এবং কুমারী বাণিজ্যকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন করে বাংলাদেশ মেন’স রাইটস ফাউন্ডেশন। সকাল ১০টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এ মানববন্ধন করা হয়। 

সংগঠনের চেয়ারম্যান শেখ খায়রুল আলম বক্তব্যে বলেন, বাংলাদেশের পুরুষরা আজ ঘরে-বাহিরে সব জায়গায় ষড়যন্ত্রের শিকার হচ্ছে।এদেশে অহরহ এরকম ঘটনা ঘটছে।   ষড়যন্ত্রের শিকার ভুক্তভোগী হেলাল উদ্দিন। তার স্ত্রী নিকাহ্ নামায় কুমারী শব্দটি ব্যবহার করেছেন, কিন্তু ইতঃপূর্বে তার ৪টি বিবাহ হয়েছিল এবং সন্তানও আছে।
তিনি বলেন, উদ্দেশ্যপ্রণোদিত অনেকেই  কুমারী সেজে পুরুষদের কাছ থেকে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। এসকল নারীদের বিরুদ্ধে প্রতারণার মামলা দিয়ে লাভবান হওয়া যায় না, কারণ তারা নারী নির্যাতন মামলা দিয়ে ভুক্তভোগী পুরুষকে হাজতে পাঠিয়ে দেয়। নারী নির্যাতন মামলায় আপোষ ছাড়া জামিন হয় না।

কাজেই বাধ্য হয়েই টাকা-পয়সা দিয়ে ঐসব নারীদের সঙ্গে আপোষ করতে হয়। আমি একজন আইনের ছাত্র এবং পুরুষ অধিকার কর্মী হিসেবে মনে করি কুমারী বাণিজ্যকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া হলে অসহায় পুরুষগুলো রক্ষা পাবে। শোনা যাচ্ছে নিকাহ নামার ৫নং কলাম থেকে কুমারী শব্দটি বাদ দেওয়া হবে। এটি করা হলে কুমারী বাণিজ্যকারীরা আরো উৎসাহিত হবে। বর্তমানে ধর্ষণ মামলাকে অনেকে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করছে।

ভুক্তভোগী হেলাল উদ্দিন বলেন, ধর্ষিতা মেয়েকে বিয়ে করে ভয়ংকর প্রতারণার ফাঁদে পড়েছি। আমি হেলাল উদ্দিন, পিতা মৃত শেখ সামছুদ্দীন, সাং মধুরচর, পোস্ট মেঘুলা থানা, দোহার, ঢাকা। আমি আজ আপনাদের সামনে হাজির হয়েছি এক বুক কষ্ট নিয়ে, সেটা হচ্ছে বিগত ২৬/০৭/২০২৩ইং তারিখে আমি আমার ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস পোস্ট করি , ধর্ষিতা একটি মেয়ে খুঁজছি। অতপর আমার শাশুড়ি শাহনাজ বেগম আমার বাড়িতে ঘটক পাঠিয়ে কৌশলে আমাকে তাদের বাড়িতে এনে তার মেয়েকে দেখিয়ে বলেন, আমার মেয়েটা ধর্ষিত, নির্যাতিত শুধু তাই নয় আমার মেয়ের মাথার চুলগুলো কেটে দিয়েছে ঐ ধর্ষক ছেলে, তখন তার মাথার চুল এক বিগত ছোট ছিল। ইচ্ছে করলে তার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নিয়ে তাকে জেল খাটাতে পারতাম শুধু মাত্র ইজ্জতের ভয়ে থেমে গেছি চুপ হয়ে আছি, আমি মনে মনে বলি যে, যে রকম পাত্রী খুঁজছি ঠিক ঐ রকমই পেয়ে গেছি আলহামদুলিল্লাহ।  

মানববন্ধনে বক্তব্য রখেন বাংলাদেশ মেস সংঘের মহাসচিব আয়াতুল্লাহ আকতার।  আরো বক্তব্য রাখেন  বিএমআরএফ-এর ঢাকা জেলার জয়েন্ট সেক্রেটারি মো. লিটন গাজী, সংগঠনের মিডিয়া মুখপাত্র নজরুল ইসলাম দয়া, মো. আনোয়ার হোসেনসহ অনেকে। উক্ত মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন অত্র সংগঠনের চেয়ারম্যান শেখ খায়রুল আলম।

� পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ �







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: নাজমুল হক শ্যামল
দৈনিক নতুন সময়, গ্রীন ট্রেড পয়েন্ট, ৭ বীর উত্তম এ কে খন্দকার রোড, মহাখালী বা/এ, ঢাকা ১২১২।
ফোন: ৫৮৩১২৮৮৮, ০১৯৯৪ ৬৬৬০৮৯, ইমেইল: [email protected]
কপিরাইট © দৈনিক নতুন সময় সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | Developed By: i2soft
DMCA.com Protection Status