ই-পেপার সোমবার ১৪ নভেম্বর ২০২২
ই-পেপার |  সদস্য হোন |  পডকাস্ট |  গুগলী |  ডিসকাউন্ট শপ
বৃহস্পতিবার ৩০ মে ২০২৪ ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
বগুড়ায় দুই সংসদ সদস্যের ভাই, ছেলে ও বাবা প্রার্থী
নতুন সময় প্রতিবেদক
প্রকাশ: Sunday, 21 April, 2024, 6:43 PM

বগুড়ায় দুই সংসদ সদস্যের ভাই, ছেলে ও বাবা প্রার্থী

বগুড়ায় দুই সংসদ সদস্যের ভাই, ছেলে ও বাবা প্রার্থী

বগুড়া-১ আসনের সারিয়াকান্দি ও সোনাতলা উপজেলা চেয়ারম্যান পদের নির্বাচনে স্থানীয় আওয়ামী লীগের এমপি সাহাদারা মান্নানের ছেলে সাখাওয়াত হোসেন সজল ও ভাই মিনহাদুজ্জামান লিটন প্রার্থী হয়েছেন। 

এ ছাড়া বগুড়া-৩ (আদমদীঘি-দুপচাঁচিয়া) আসনের এমপির বাবা সিরাজুল আলম খান রাজু চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছেন। আওয়ামী লীগের সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা অমান্য করে প্রচারণা অব্যাহত রেখেছেন তারা। শেষ পর্যন্ত এই দুই উপজেলায় কি হবে এই নিয়ে ভোটের মাঠে অনেকের প্রশ্ন।

সারিয়াকান্দি ও সোনাতলা উপজেলা নিয়ে বগুড়া-১ আসনে টানা তিনবারের সংসদ সদস্য ছিলেন আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মরহুম আবদুল মান্নান। ২০২০ সালের ১৮ জানুয়ারি মৃত্যুর পর উপনির্বাচনে তার স্ত্রী সাহাদারা মান্নান দলীয় মনোনয়নে সংসদ সদস্য হন। গত ৭ জানুয়ারির নির্বাচনে তিনি দ্বিতীয় দফায় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।

জানা গেছে, তফসিল ঘোষণার আগে থেকেই সারিয়াকান্দিতে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা দিয়ে দলের বেশ কয়েকজন নেতা মাঠে নামেন। কিন্তু গত ১৬ মার্চ আস্থাভাজন নেতা-কর্মীদের নিজের বাসায় ডেকে সংসদ সদস্য সাহাদারা মান্নান তার ছেলে মোহাম্মেদ সাখাওয়াত হোসেনকে চেয়ারম্যান পদের প্রার্থী ঘোষণা করেন। এরপর অনুসারী নেতা-কর্মীদের নিয়ে মাঠে নামেন সাখাওয়াত হোসেন সজল। পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী সাখাওয়াত মায়ের অনুসারীদের নিয়ে মনোয়নপত্র দাখিল করেন।

রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, এমপি সাহাদারা মান্নানের ছেলে ছাড়াও এ উপজেলায় আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠন থেকে আরও চারজন চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। তারা হলেন বর্তমান চেয়ারম্যান ও সারিয়াকান্দি উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রেজাউল করিম (মন্টু), উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আশিক আহম্মেদ, উপজেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি আবদুস সালাম এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান শাহজাহান আলী। 

অন্যদিকে সোনাতলা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন দাখিল করেছেন আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য সাহাদারা মান্নানের ছোট ভাই মিনহাদুজ্জামান লিটন। এখানে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান জাকির হোসেন। ২০১৯ সালে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনেও মিনহাদুজ্জামানকে দলীয় প্রার্থী করেছিলেন সাহাদারা মান্নান। পরে মিনহাদুজ্জামান সোনাতলা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হন।

আসন্ন চার ধাপের উপজেলা নির্বাচন থেকে আওয়ামী লীগের মন্ত্রী-এমপিদের আত্মীয়দের সরে দাঁড়ানোর নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। সেইসঙ্গে নির্দেশনা না মানলে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও সতর্ক করা হয়েছে। আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে চিঠি দিয়ে এবং সাংগঠনিকভাবে এই নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। গত ১৮ এপ্রিল দলীয় প্রধান শেখ হাসিনার এই নির্দেশনা দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদকদের জানিয়ে দিয়েছেন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। সে অনুযায়ী, নিজ নিজ বিভাগের মন্ত্রী-এমপিদের বিষয়টি জানিয়েছেন দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতারা।

জানা যায়, প্রথম ধাপে বগুড়ার গাবতলী, সারিয়াকান্দি ও সোনাতলা উপজেলায় আগামী ৮ মে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। দলীয় নির্দেশনা অমান্য করে সারিয়াকান্দি ও সোনাতলা উপজেলায় এমপির ছেলে ও ভাই নির্বাচনী প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। এ ব্যাপারে জানতে সাখাওয়াত হোসেন সজলকে একাধিকবার কল দিলেও রিসিভ করেননি।
 
সোনাতলা উপজেলার বর্তমান চেয়ারম্যান ও চেয়ারম্যান প্রার্থী মিনহাদুজ্জামান লিটন বলেন, মূলত যারা নির্বাচনে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি ও প্রভাব বিস্তার করছেন; তাদের এই নির্দেশ দিয়েছেন। এটি তাদের জন্য প্রযোজ্য হবে। দলীয় প্রতীক কাউকে দিচ্ছে না দল; নির্বাচন উন্মুক্ত করে দিয়েছে সবার জন্য। কাজেই আমাদের প্রার্থী হওয়াতে কোনও বাধা নেই।

দ্বিতীয় ধাপে আদমদীঘি, দুপচাচিঁয়া ও কাহালু উপজেলায় ২১ মে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। আদমদীঘি উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সিরাজুল ইসলাম খান রাজুর ছেলে উপজেলা আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়াবিষয়ক সম্পাদক খান মোহাম্মদ সাইফুল্লাহ আল মেহেদী বাঁধন গত ৭ জানুয়ারির নির্বাচনে বগুড়া-৩ আসনে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। তার মা মঞ্জুয়ারা বেগম বগুড়া জেলা পরিষদের সদস্য। সংসদ সদস্য নির্বাচনে সিরাজুল ইসলামকে নৌকার প্রার্থী করা হয়েছিল। এ জন্য তিনি উপজেলা চেয়ারম্যানের পদ ছাড়েন। পরে আওয়ামী লীগ তাকে প্রার্থিতা না দেওয়ায় তার ছেলে জাপা প্রার্থীকে পরাজিত করে এমপি হন। উপজেলা নির্বাচনে দ্বিতীয় ধাপে সিরাজুল ইসলাম আবারও আদমদীঘি উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী হয়েছেন।
 
এ প্রসঙ্গে সিরাজুল ইসলাম খান বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার আগেই মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছি। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার কোনো কাগজপত্র এখনও পাইনি। মনে হয় না, এই নির্দেশনা আমার জন্য। তবু দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে আলোচনা করে নির্বাচনে থাকার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেব।

অন্যদিকে নাটোরে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীকে অপহরণ ও মারধরের অভিযোগে নাটোরের সিংড়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের শ্যালক লুৎফুল হাবীব রুবেলকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছে উপজেলা আওয়ামী লীগ। 

� পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ �







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: নাজমুল হক শ্যামল
দৈনিক নতুন সময়, গ্রীন ট্রেড পয়েন্ট, ৭ বীর উত্তম এ কে খন্দকার রোড, মহাখালী বা/এ, ঢাকা ১২১২।
ফোন: ৫৮৩১২৮৮৮, ০১৯৯৪ ৬৬৬০৮৯, ইমেইল: [email protected]
কপিরাইট © দৈনিক নতুন সময় সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | Developed By: i2soft
DMCA.com Protection Status