ই-পেপার সোমবার ১৪ নভেম্বর ২০২২
ই-পেপার |  সদস্য হোন |  পডকাস্ট |  গুগলী |  ডিসকাউন্ট শপ
সোমবার ২২ জুলাই ২০২৪ ৬ শ্রাবণ ১৪৩১
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায়-৬ মাসের কন্যা শিশু কান্না করায় শ্বাসরোধ করে হত্যা করলো পাষন্ড মা
ইয়াছিন মাহমুদ
প্রকাশ: Tuesday, 2 July, 2024, 7:05 PM

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায়-৬ মাসের কন্যা শিশু কান্না করায় শ্বাসরোধ করে হত্যা করলো পাষন্ড মা

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায়-৬ মাসের কন্যা শিশু কান্না করায় শ্বাসরোধ করে হত্যা করলো পাষন্ড মা

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় -৬ মাসের শিশু কন্যা সন্তান কান্না করায় শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে পাষন্ড এক মা। সোমবার রাতের দিকে খাল থেকে এই শিশুর মরদেহ টি উদ্ধার করেছে পুলিশ।

ঘটনাটি ঘটেছে জেলার সদর উপজেলার বাসুদেব ইউনিয়নের বড়িশ্বল গ্রামে। এ ঘটনায় পুলিশ নিহত শিশু নুসরাত জাহান তিথির মা স্বপ্না বেগম ও পিতা জিল্লুর রহমানকে আটক করেছে।

ঘটনার পর পর এলাকাজুড়ে ব্যাপক চাঞ্চল্য  সৃষ্টি হয়।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, জিল্লুর রহমান ও স্বপ্না বেগম প্রতিদিনের মত শিশু নুসরাতকে সাথে নিয়ে ঘরে ঘুমিয়ে ছিলেন। সোমবার সকালে স্বপ্না বেগম তার শিশু নুসরাত নিখোঁজ হয়েছে বলে চিৎকার শুরু করেন। পরে সদর থানায় একটি জিডি করলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তদন্ত শুরু করেন। এক পর্যায়ে পুলিশ বাড়ির পাশের একটি খাল থেকে শিশুটির মরদেহ ভাসতে দেখে। নিখোঁজের বিষয়টি পুলিশের সন্দেহ হয় তার পর  শিশুটির মাকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করলে এক সময় হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেন।

তিনি জানান, রাতে চিৎকার ও কান্নাকাটি করার কারণে শিশুটির মুখে ওড়না ঢুকিয়ে দেয়। এতে শিশুটি মারা যায়। পরে তার স্বামী মরদেহটি খালে ফেলে আসতে বলে।
সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা

মোঃ আসলাম হোসেন বলেন, শিশুটির মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় আটকৃত বাবা,মা শিশুটিকে হত্যা ও লাশ গুমের পেছনে জড়িত বলে-১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন। আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে ।

� পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ �







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: নাজমুল হক শ্যামল
দৈনিক নতুন সময়, গ্রীন ট্রেড পয়েন্ট, ৭ বীর উত্তম এ কে খন্দকার রোড, মহাখালী বা/এ, ঢাকা ১২১২।
ফোন: ৫৮৩১২৮৮৮, ০১৯৯৪ ৬৬৬০৮৯, ইমেইল: [email protected]
কপিরাইট © দৈনিক নতুন সময় সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | Developed By: i2soft
DMCA.com Protection Status