ই-পেপার সোমবার ১৪ নভেম্বর ২০২২
ই-পেপার |  সদস্য হোন |  পডকাস্ট |  গুগলী |  ডিসকাউন্ট শপ
বৃহস্পতিবার ৩০ মে ২০২৪ ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
শেওড়াপাড়া এখন সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত: কাউন্সিলর জনি
মারুফ হায়দার
প্রকাশ: Sunday, 21 April, 2024, 12:43 PM

শেওড়াপাড়া এখন সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত: কাউন্সিলর জনি

শেওড়াপাড়া এখন সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত: কাউন্সিলর জনি

রাস্তার উন্নয়নের উদ্দেশ্যে মিরপুর শেওড়াপাড়ার শাপলা সরণীতে শতাধিক বাড়িওয়ালা দুই ফিট করে জায়গা ছেড়ে দেন। ১৪ নাম্বার ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ হুমায়ুন রশীদ জনির উন্নয়নমূলক কাজে সহযোগীতার উদ্দেশ্যেই মহল্লার সকল বাড়িওয়ালারা এ পদক্ষেপ গ্রহণ করেন।

যে সকল বাড়িওয়ালা সহযোগীতা করেননি তাদের উদ্দেশে কাউন্সিলর জনি বলেন, একদিন হয়তো আমি থাকবো না, কিন্তু আপনার এলাকায় আপনার বাড়িতে আপনার সন্তানরা বসবাস করবে। তাদের নিরাপত্তার ও ভবিষ্যৎ জীবনের কথা ভেবে এ কাজে সহযোগিতা করুন। এলাকায় কোন দুর্ঘটনা ঘটলে যেমন- অগ্নিকাণ্ড,অন্যান্য দুর্ঘটনা ঘটলে জরুরী সেবা দেওয়ার জন্য অ্যাম্বুলেন্স ফায়ার সার্ভিস প্রবেশ কষ্টদায়ক। 

শেওড়াপাড়া এখন সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত: কাউন্সিলর জনি

শেওড়াপাড়া এখন সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত: কাউন্সিলর জনি

তিনি আরও বলেন, উন্নতমানের বসবাসের জন্য ভালো মানের ভাড়াটিয়াদের আসার সুযোগ করার জন্য রাস্তাকে অবশ্যই প্রশস্ত করতে হবে,বাড়িঘর নির্মাণ করতে গেলে ট্রাক অথবা মালবাহী কোনো গাড়ি প্রবেশ করলে আর কোন গাড়ি আসতে পারে না। যানজটে জর্জরিত হয়ে যায় পুরো ১৪ নম্বর ওয়ার্ড। তাই আমি উদ্বোধনের পর দ্বিতীয় দফায় আসলাম যারা কাজে এখনো বিলম্ব করছেন। তাদের জন্য আমার বিশেষ অনুরোধ ও সতর্কবাণী, আমি আগামী চার পাঁচ তারিখে ঢাকায় আসব এবং ২২ তারিখে  ওমরা হজ্জ করার জন্য সৌদি আরব যাব। এসে এই কাজের সমাপ্তি করব ইনশাআল্লাহ।

কাউন্সিলর বলেন, এলাকার শীর্ষ সন্ত্রাসী কালা জাহাঙ্গীরের নাম ভাঙ্গিয়ে এই ১৪ নাম্বার ওয়ার্ডে অতিরিক্ত চাঁদাবাজি, হত্যা ও ধর্ষণ হত। গার্মেন্টসের কর্মীরা বেতন পেলে তাদের বেতন কেড়ে নিত ছিনতাইকারীরা এবং এমন অগণিত ধর্ষণের কথা শোনা যেত। বাড়িঘর নির্মাণ করলে গোপনে চাঁদাবাজরা এসে চাঁদা দিয়ে যেত। কোথাও ভয়ে একটি ভিডিও পর্যন্ত করতে সাহস পেত না।  সেই শেওড়াপাড়া এখন সন্ত্রাস মাদক কিশোর গ্যং প্রায় কমিয়ে ফেলেছি,, আর এগুলো সম্ভব হয়েছে জননেত্রী শেখ হাসিনার কঠোর হাতে হস্তক্ষেপের কারণে। এবং বর্তমান সরকার ও মেয়র মহোদয় রাস্তার পক্ষে এটাই আমাদের বড় শক্তি।

কমিশনার জনির "শাপলা সমাজ কল্যাণ সোসাইটি" এর কঠোর পরিশ্রমের কারণেই। তিনি ব্যাখ্যা করেন, একজন সমাজসেবী সমাজের প্রতি কঠোর পরিশ্রম করলে সে একদিন সফল হয়, তেমনি যে যে লাইনে থাকে সে লাইনে কঠোর পরিশ্রম করলে একদিন সফলতা অর্জন করবেই!

জনি বলেন, নির্বাচনের আর মাত্র ৮ থেকে ৯ মাস বাকি আছে। আগামী জানুয়ারি ফেব্রুয়ারিতে হতে পারে। আমি অত্র এলাকায় একটি খেলার মাঠ ও পার্ক বানাতে পারেনি, আগামীতে যদি আমার থেকে ডায়নামিক ও জ্ঞানী বুদ্ধিমান এসে নির্বাচন করে অবশ্যই তার কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করব। তবে ১৪ নম্বর ওয়ার্ডের জনগণের জন্য আমার কোন অংশ কমতি ছিল না, আমি চেষ্টা করেছি তাদের জনদুর্ভোগ ঝগড়া বিবাদ সহ সকল সামাজিক কাজের উপস্থিত থেকে সহযোগিতা করার।

� পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ �







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: নাজমুল হক শ্যামল
দৈনিক নতুন সময়, গ্রীন ট্রেড পয়েন্ট, ৭ বীর উত্তম এ কে খন্দকার রোড, মহাখালী বা/এ, ঢাকা ১২১২।
ফোন: ৫৮৩১২৮৮৮, ০১৯৯৪ ৬৬৬০৮৯, ইমেইল: [email protected]
কপিরাইট © দৈনিক নতুন সময় সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | Developed By: i2soft
DMCA.com Protection Status