ই-পেপার সোমবার ১৪ নভেম্বর ২০২২
সদস্য হোন |  আমাদের জানুন |  পডকাস্ট |  গুগলী |  ডিসকাউন্ট শপ
সোমবার ২২ এপ্রিল ২০২৪ ৯ বৈশাখ ১৪৩১
শরীয়তপুর শিক্ষকদের বিরুদ্ধে গনধর্ষণের অভিযোগ
নতুন সময় প্রতিনিধি
প্রকাশ: Sunday, 31 March, 2024, 8:45 PM

শরীয়তপুর শিক্ষকদের বিরুদ্ধে  গনধর্ষণের অভিযোগ

শরীয়তপুর শিক্ষকদের বিরুদ্ধে গনধর্ষণের অভিযোগ

শরীয়তপুরে নড়িয়া উপজেলায় অষ্টম শ্রেণিতে পড়ুয়া এক  স্কুল ছাএীকে পালাক্রমে গনধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে  ইউপি সদস্য ও স্কুল শিক্ষকদের বিরুদ্ধে।

ভুক্তভোগীর পরিবার সূত্রে জানা যায়, গত (রোববার ২৪ সে মার্চ) বিদ্যালয় ছুটির পর কেদারপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ভুক্তভোগী ওই শিক্ষার্থীকে লাইব্রেরিতে ডেকে আনা হয়। এরপর দরজা বন্ধ করে পালাক্রমে  শিক্ষকরা ওই শিক্ষার্থী  কে ধর্ষণ করে ।  

ভুক্তভোগী ওই শিক্ষার্থী ভয়ে তাৎক্ষণিকভাবে বিষয়টি নিয়ে কাউকে জানাতে পারেনি। কিন্তু ঘটনা প্রকাশ হয়ে যাওয়ার ভয়ে বৃহস্পতিবার বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আ. গনি ওই ছাত্রীকে ডেকে নেন। পরে তার গলায় ছুরি ধরে হত্যার হুমকি দিয়ে কাউকে না জানানোর জন্য শাসায়। এতে সে ভয় পেয়ে পরিবারকে বিষয়টি জানায়। অভিযুক্তরা প্রভাবশালী হওয়ায় তাদের ভয়ে থানায় না গিয়ে আদালতে মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে জানিয়েছে ভুক্তভোগীর পরিবার।

এঘটনা পর থেকেই মেয়েটি অনেকটা মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেছে।

বৃহস্পতিবার (২৮ মার্চ) ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী তার মা ও খালার কাছে সবকিছু বলে দেয়। পরে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীকে (২৯ শে মার্চ শুক্রবার )শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন তার স্বজনরা।

ভুক্তভোগীর মা জানান, ‘আমার মেয়ে গত কিছুদিন ধরে কারও সাথেই ঠিকমতো কথা বলছিলো না। এমনকি ঠিকমতো খাওয়া-দাওয়াও করছিলো না। সর্বশেষ, গতকাল (বৃহস্পতিবার) বেশি বিচলিত দেখে জিজ্ঞেস করলে একপর্যায়ে আমাকে জরিয়ে ধরে কেঁদে ফেলে। তার সাথে ঘটে যাওয়া ঘটনা খুলে বলে। তার সাথে দীর্ঘদিন ধরে এই ধরনের কাজ হচ্ছিলো বলে আমাকে জানাই।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আ. গনি ওই ছাত্রীর গলায় ছুরি ধরার বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, ‘আমি ছুটিতে ছিলাম, এই বিষয়ে কিছুই জানি না। তবে কোনও শিক্ষক এই ধরনের ঘটনা ঘটিয়ে থাকলে তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

নড়িয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান জানান, ‘শরীয়তপুর সদর হাসপাতাল থেকে আমরা জরুরি মেসেজ পেয়েছি, ওই মেয়েটি হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। বিষয়টির খোঁজ-খবর নিচ্ছি। এ ঘটনায় এখনও পর্যন্ত কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: নাজমুল হক শ্যামল
দৈনিক নতুন সময়, গ্রীন ট্রেড পয়েন্ট, ৭ বীর উত্তম এ কে খন্দকার রোড, মহাখালী বা/এ, ঢাকা ১২১২।
ফোন: ৫৮৩১২৮৮৮, ০১৯৯৪ ৬৬৬০৮৯, ইমেইল: info@notunshomoy.com
কপিরাইট © দৈনিক নতুন সময় সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | Developed By: i2soft
DMCA.com Protection Status