ই-পেপার সোমবার ১৪ নভেম্বর ২০২২
সদস্য হোন |  আমাদের জানুন |  পডকাস্ট |  গুগলী |  ডিসকাউন্ট শপ
মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪ ৩ বৈশাখ ১৪৩১
ঢাকায় বাড়ছে বোরকা পরে শিশু অপহরণ
নতুন সময় প্রতিবেদক
প্রকাশ: Friday, 29 March, 2024, 12:52 AM

ঢাকায় বাড়ছে বোরকা পরে শিশু অপহরণ

ঢাকায় বাড়ছে বোরকা পরে শিশু অপহরণ

রাজধানী ঢাকায় বেড়েছে শিশু অপহরণ। বোরকা পরে পরিচয় গোপন রেখে শিশু চুরি করা হচ্ছে। তাই অভিভাবকদের আরও সচেতন হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (গোয়েন্দা) মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ। বৃহস্পতিবার (২৮ মার্চ) দুপুরে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ আহ্বান জানান।

রাজধানীতে অপহরণের ৭ দিন পর বুধবার (২৭ মার্চ) আড়াই বছরের এক শিশুকে কুমিল্লা থেকে উদ্ধার করেছে ডিবি পুলিশ। একই সঙ্গে শিশুচোর চক্রের তিন সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তাররা হলেন সুলতানা আক্তার ওরফে নেহা, মো. সাইফুল ইসলাম ও মো. শাহজাহান। গ্রেপ্তারের সময় তাদের হেফাজত থেকে অপহৃত শিশু তাওসীনকে উদ্ধারসহ শিশু বিক্রির ২৩ হাজার ৫০০ টাকা উদ্ধার করা হয়েছে।

ডিএমপির ডিবি কম্পাউন্ডে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সাথে ব্রিফিংকালে অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (গোয়েন্দা) মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ বলেন, গত ২১ মার্চ ২০২৪ সকালে অন্যান্য দিনের মতো স্ত্রী ও সন্তানদের বাসায় রেখে রিকশা চালাতে বের হন হাজারীবাগের ঝাউচর এলাকার নুরুল ইসলাম। বিকাল সোয়া চারটার দিকে তার ৬ বছরের মেয়ে তাবাসসুমের সাথে ছেলে তাওসীন বাসার সামনে খেলতে যায়।

তারা যখন খেলছিল তখন তাদের পাশে বসেছিল তাদের নানী লুৎফুন নাহার। কিছুক্ষণ পর একজন বোরখা পড়া অজ্ঞাতপরিচয় মহিলা লুৎফুন নাহারকে জিজ্ঞাসা করে এরা অপনার কি হয়, পরিচয় জেনে মহিলা সেখান থেকে চলে যায়। নাতী-নাতনীদের খেলা অবস্থায় রেখে লুৎফুন নাহার পাশেই নিজের বাসায় যান। এই সুযোগে বোরকা পড়া মহিলাটি আবার আসেন এবং তাদের দুইজনের হাতে দুইটা চিপস দেন। এরপর মহিলাটি সুযোগ বুঝে শিশু তাওসীনকে কোলে করে নিয়ে সটকে পড়েন।

শিশুটির বোন তাবাসসুম তার মাকে এসে জানায়, একজন মহিলা তার ছোট ভাইকে নিয়ে যাচ্ছে। এ কথা শুনে তাদের মা দ্রুত বাসার সামনে যায় এবং অজ্ঞাতাপরিচয় মহিলাসহ ছেলেকে খোঁজাখুঁজি করেও কোন সন্ধান পাননি। ছেলেটির সন্ধানের জন্য এলাকায় মাইকিংও করা হয়। পরের দিন শিশুটির বাবা নুরুল ইসলাম হাজারীবাগ থানায় একটি মামলা করেন।

হারুন অর রশীদ আরও জানান, থানা পুলিশের পাশাপাশি গোয়েন্দা রমনা বিভাগের ধানমন্ডি জোনাল টিম মামলাটি তদন্ত শুরু করে। মামলা তদন্তে তথ্য মেলে অভিযুক্তদের। এরপর বুধবার (২৭ মার্চ) সন্ধ্যায় কুমিল্লার লালমাই ও বরুড়া থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাদের কাছ থেকে অপহৃত শিশু তাওসীনকে উদ্ধার করা হয়।

সুলতানা আক্তার ও তার স্বামী মো. সাইফুল ইসলাম শিশু তাওসীনকে অপরহণ করে ৫০ হাজার টাকায় শাহজাহানের কাছে বিক্রি করে দেয়। গ্রেপ্তারের সময় অপহরণকারী চক্রটির কাছ থেকে শিশু বিক্রির নগদ ২৩ হাজার ৫০০ টাকা উদ্ধার করা হয়েছে।

তিনি জানান, রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় এ ধরনের কালো বোরখা পড়া মহিলারা শিশু চুরির উদ্দেশ্যে ঘুরে বেড়ায়। এরা অভিভাবক ছাড়া কোনো ছোট শিশুকে পাওয়া মাত্রই তাদেরকে চিপস, আইসক্রীম ও চকলেট দিয়ে কৌশলে অপহরণ করে নিয়ে যায়।

পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: নাজমুল হক শ্যামল
দৈনিক নতুন সময়, গ্রীন ট্রেড পয়েন্ট, ৭ বীর উত্তম এ কে খন্দকার রোড, মহাখালী বা/এ, ঢাকা ১২১২।
ফোন: ৫৮৩১২৮৮৮, ০১৯৯৪ ৬৬৬০৮৯, ইমেইল: info@notunshomoy.com
কপিরাইট © দৈনিক নতুন সময় সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | Developed By: i2soft
DMCA.com Protection Status