কাজী শামীম কাতার থেকে
Published : Friday, 8 June, 2018 at 12:26 AM, Update: 08.06.2018 12:32:26 AM, Count : 87
বিমান বাংলাদেশের দোহা-ঢাকা রুটে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়

বিমান বাংলাদেশের দোহা-ঢাকা রুটে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়

পবিত্র রমজান মাস শেষের পথে, আসছে ঈদুল ফিতর এর আনন্দ পরিবারের সাথে ভাগাভাগি করে নিতে দেশে যাওয়ার প্রস্তুুতি নিচ্ছেন কাতারে বসবাসরত বাংলাদেশীরা।

বাড়তি কেনাকাটা, এয়ার টিকেট সংগ্রহ, কোম্পানি থেকে ছুটি নেওয়া এইসব বিষয়ে একজন মানুষকে রিতিমতো ব্যাস্ত থাকতে হয় দেশে আশার পূর্ব মুহূর্ত পর্যন্ত।

সম্ভাব্য আগামি ১৫ই বা ১৬ই জুন পবিত্র ঈদুল ফিতর অনুষ্ঠিত হবে কাতারে এবং বাংলাদেশে ১৭ই জুন। তাই পরিবারের সাথে ঈদ করতে দেশে যাওয়ার জন্য এয়ার টিকেট নিতে প্রবাসী বাংলাদেশীরা ভীড় জমাচ্ছেন বিভিন্ন ট্রাভেল এজেন্সিগুলোতে। কিন্তুু ট্রাভেল এজেন্সিগুলোতে আশার পরই যাত্রীরা জানতে পারেন তাদের পছন্দের ক্যারিয়ার বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স এর ভাড়া অন্যান্য এয়ারলাইন্স থেকে অতিরিক্ত বেশী। 'ট্রাভেল চ্যানেল এন্ড ট্যুর' এর টিকেট ও রির্জাভেশন কর্মকর্তা সাইদুল ইসলাম শাকিল জানান, গত মে মাস পর্যন্ত বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স'র দোহা-ঢাকা-দোহা রির্টান টিকেট যাত্রীদের ক্রয়সীমার মধ্যে ছিল কিন্তুু এখন ঈদুল ফিতরকে কেন্দ্র করে জুন এর প্রথম সপ্তাহ থেকেই বাংলাদেশ বিমানের ভাড়া অতিরিক্ত হয়ে আছে অন্যান্য এয়ারলাইন্স এর তুলনায়। তিনি আরো বলেন, ঈদের পূর্বে যেখানে কাতার এয়ারওয়েজ এর ভাড়া ১৭৮০ রিয়াল সেখানে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স নিচ্ছে ২৪৫০ রিয়াল। এছাড়াও তিনি আরো বলেন, দোহা থেকে সিলেট এবং দোহা থেকে চট্রগ্রাম ২৬৫০ রিয়াল রির্টান ভাড়া, তাই অধিকাংশ যাত্রী বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের টিকেট নিচ্ছে না।

তিনি আরো বলেন, আমি মনে করি বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স এই ভাবে ভাড়া বৃদ্ধি করে রাখায় নিয়মিত যাত্রী পায় না, সীট খালি যায়। এতে করে বিমান থেকে মুনাফা না আশায় বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সকে বছর শেষে লস গুনতে হয়।

দেশে যাওয়ার জন্য টিকেট নিতে আশা মোঃ সামছুল আলম বলেন, বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স এর ভাড়া অতিরিক্ত হওয়ায় আমি কাতার এয়ারওয়েজ এর টিকেট নিয়েছি। তিনি আরো বলেন, আমি চেয়েছিলাম আমাদের দেশের বিমানের টিকেট নিবো কিন্তুু প্রাইভেট বিমানগুলোর সীট পাইনাই এবং বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স এর অতিরিক্ত ভাড়া হওয়াতে আমি কাতার এয়ারওয়েজ টিকেট নিয়েছি।

বাংলাদেশী মালিকানাধীন রিজেন্ট এয়ারওয়েজ ও ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্স  দোহা - ঢাকা রুটে নিয়মিত ফ্লাইট পরিচালনা করছে। ঈদুল ফিতর উপলক্ষে এই দুইটি ফ্লাইটের ভাড়া ছিল ১২০০ রিয়াল থেকে ১৫০০ রিয়াল, যা যাত্রীদের ক্রয়ক্ষমতার মধ্যে। ঈদুল ফিতরের  এক সপ্তাহ পূর্ব থেকে এই দুইটি এয়ারলাইন্সের সকল সীট বিক্রি শেষ।

দোহা-ঢাকা রুটে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় হচ্ছে অভিযোগ স্বীকার করে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স কাতারের কান্ট্রি ম্যানেজার রেজাউল আহসান বলেন, ১ই জুন থেকে এই বাড়তি ভাড়া নির্ধারন করেছে কতৃপক্ষ, ঈদ পর্যন্ত এমনই থাকবে। তবে পূর্বে ভাড়া আরো বাড়তি ছিল, আমার অনুরোধে কতৃপক্ষ এখন কিছুটা কমিয়েছে। আশা করছি জুলাই থেকে নতুন ভাড়া নির্ধারণ করবেন কর্তৃপক্ষ।

উল্লেখ্য গত এক বছর থেকে কাতারের উপর সৌদিজোটের অবরোধের কারনে ফ্লাইদুবাই, এমিরেটস, ইতিহাদ, এয়ার আরাবিয়াসহ বেশ কিছু এয়ারলাইন্স কাতারে ফ্লাইট পরিচালনা করছে না। এতে করে অনেক যাত্রী তাদের সেই সকল পছন্দের এয়ারলাইন্সের সেবা নিতে পারছেন না।


« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
সম্পাদক ও প্রকাশক: নাজমুল হক শ্যামল
দৈনিক নতুন সময়, বাড়ি ৭/১, রোড ১, পল্লবী, মিরপুর ১২, ঢাকা- ১২১৬
ফোন: ৫৮৩১২৮৮৮, ০১৯৯৪ ৬৬৬০৮৯, ইমেইল: newsnotunsomoy@gmail.com
Developed & Maintainance by i2soft