নতুন সময় প্রতিবেদক
Published : Sunday, 6 May, 2018 at 11:05 AM, Update: 07.05.2018 10:21:25 AM, Count : 175
এবার বিএনপিকে এরশাদের নেতৃত্বের জোটে যোগ দেয়ার প্রস্তাব

এবার বিএনপিকে এরশাদের নেতৃত্বের জোটে যোগ দেয়ার প্রস্তাব

এবার হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ জাতীয় পার্টির নেতৃত্বের জোটে বিএনপিকে যোগ দেওয়ার প্রস্তাব দিয়েছেন। সাম্প্রতিক সিঙ্গাপুর সফরে বিএনপির প্রতিনিধিদের সঙ্গে এক বৈঠকে এরশাদ এই প্রস্তাব দেন বলে একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে।

এরশাদ তারেক জিয়ার ঐ দুই প্রতিনিধিকে বলেছেন, ‘আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগকে ক্ষমতা থেকে হটানোর একটাই রাস্তা আছে, সেটা হলো তাঁর (জাতীয় পার্টি) নির্বাচনে অংশ নেওয়া। এরশাদ মনে করেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বেগম জিয়া অংশগ্রহণ করতে পারবে না। আর তাই বিএনপি একটি দুর্বল এবং খণ্ডিত দল হিসেবে নির্বাচনে অংশ নিলে তৃতীয় হবে।

এরশাদ মনে করেন, বিএনপি যদি নির্বাচন বর্জন করে তাহলে দলটির নিবন্ধন বাতিল হবে এবং বিএনপি অস্তিত্বের সংকটে পড়তে পারে। সাবেক এই একনায়ক এটাও বলেছেন, নির্বাচন ছাড়া আওয়ামী লীগকে হটানোর আর কোনো পথ নেই। কারণ প্রশাসন থেকে শুরু করে সব কিছু আওয়ামী লীগের নিয়ন্ত্রণে।

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান বিএনপিকে বলেছে, একমাত্র ঐক্যবদ্ধ নির্বাচনের মাধ্যমেই এই সরকারকে পরাস্ত করা সম্ভব। তিনি বলেছেন, জাতীয় পার্টি আর বিএনপি ঐক্যবদ্ধ হলে দুই-তৃতীয়াংশ ভোটার এই জোটকে সমর্থন করবে। তখন সরকারে পক্ষে নির্বাচনে কারচুপি করা অসম্ভব হবে। তবে এরশাদ মনে করেন, এই জোটের নেতা হতে হবে তাঁকেই। কারণ বেগম জিয়াকে বাদ দিয়ে বিএনপিতে তাঁর সমকক্ষ কোনো নেতা নেই।

এরশাদ এটাও জানিয়েছেন যে, তিনি সাবেক রাষ্ট্রপতি, তাই মির্জা ফখরুল বা অন্যকোন নেতার অধীনে গিয়ে তিনি জোট গঠন করতে পারবেন না। অবশ্য, এরশাদ তাঁর প্রস্তাবিত জোটে বিএনপিকে বেশি আসন দেওয়ার প্রস্তাব করেছেন। এরশাদ তাঁদের আশ্বস্ত করেছেন, ক্ষমতায় গেলে সব হবে, খালেদা জিয়া মুক্তি পাবেন, তারেকও সসম্মানে দেশে ফিরতে পারবেন।

একাধিক সূত্র বলছে, এরশাদের এই প্রস্তাব এতটাই আচমকা এবং অপ্রত্যাশিত ছিল যে, তারেক জিয়ার দুই প্রতিনিধি এ নিয়ে আর আলোচনা বাড়াননি। বরং তারা বলেছেন, এ নিয়ে তারা তারেক জিয়ার সঙ্গে কথা বলে তারপর তাঁকে (এরশাদকে) জানাবে।

এরশাদ তাদের সতর্ক করে বলেছেন, এ নিয়ে খুব বেশি সময় নষ্ট করলে ‘সুযোগ হাতছাড়া’ হয়ে যাবে। সাবেক রাষ্ট্রপতি বলেছেন, বিএনপি তো ২০১৪ তে ক্ষমতায় আসতে চায়নি, তৃতীয় শক্তিকে ক্ষমতায় আনতে চেয়েছিল। আওয়ামী লীগকে হটিয়ে সরাসরি বিএনপির ক্ষমতায় আসার সুযোগ নেই বলে এরশাদ মনে করেন। এ কারণেই তাঁর এই প্রস্তাব দ্রুত বিবেচনা করতে বলেন।

অবশ্য এরশাদের এই প্রস্তাব ঢাকাতেও বিএনপির কয়েকজন নেতা জেনেছেন। তাঁরা এটাকে ‘অবাস্তব’ এবং ‘হাস্যকর’বলে মন্তব্য করেছেন। বিএনপির একজন নেতা বলেছেন, ‘এরশাদকেই আমাদের সঙ্গে ভোটের জোটে নেওয়ার জন্য আমরা দশবার ভাবছি। সেখানে তার অধীনে জোটে যাবে বিএনপি? এরচেয়ে বিএনপি নির্বাচনেই যাবে না।’

তবে বিএনপির একটি ক্ষুদ্র অংশ মনে করছে, কার নেতৃত্বে সেটা বড় কথা নয়, তবে বিএনপি-জাতীয় পার্টি-জামাত ঐক্যবদ্ধ হলে সরকারের পরাজয় অনিবার্য। তাই এখনই প্রস্তাব নাকচ না করে এ নিয়ে আলোচনা করা যেতে পারে।’

এই ক্ষুদ্র অংশের একজন নেতা বলেছেন, ‘বাড়িতে ডাকাত পড়লে এলাকার চোর, ছিচকে চোর, পকেটমার সবাইকে নিয়েই ডাকাত ঠেকাতে হয়। তাই আওয়ামী লীগকে ঠেকাতে বৃহত্তর ঐক্যের বিকল্প নেই।’



« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
সম্পাদক ও প্রকাশক: নাজমুল হক শ্যামল
দৈনিক নতুন সময়, বাড়ি ৭/১, রোড ১, পল্লবী, মিরপুর ১২, ঢাকা- ১২১৬
ফোন: ৫৮৩১২৮৮৮, ০১৯৯৪ ৬৬৬০৮৯, ইমেইল: newsnotunsomoy@gmail.com
Developed & Maintainance by i2soft