এ্যাড. ইমরুল কায়েস
Published : Sunday, 31 December, 2017 at 2:14 PM, Update: 31.12.2017 3:03:36 PM, Count : 279
রাজনৈতিক সরল উক্তি, শিক্ষামন্ত্রী চোর

রাজনৈতিক সরল উক্তি, শিক্ষামন্ত্রী চোর

শিক্ষামন্ত্রী নাহিদ রাজনৈতিক এক অবিস্বরণীয় সরল উক্তি প্রকাশ করেছে। স্বাধীন বাংলাদেশে এ পর্যন্ত রাজনৈতিক সবচেয়ে বড় সরল উক্তিটি হচ্ছে বঙ্গবন্ধুর, উক্তিটি হচ্ছে ""অামি চোরের খনি পেয়েছি''। সম্ভবত নাহিদের প্রকাশিত রাজনৈতিক সরল উক্তিটির অবস্থান বঙ্গবন্ধুর উক্তির পরেই। মন্ত্রীর সরল উক্তি নিয়ে বিরুপ সমালোচনা অব্যাহত থাকায় অাবারও এই বিষয়ে লিখতে হলো। এদেশে রাজনৈতিক সরল উক্তি তত্বটি অামিই প্রথম উপস্থাপন করেছি বহু বছর অাগে। রাজনৈতিক সরল উক্তি একটা মর্যাদাবান বিষয় যা সততা ও দেশপ্রেমের কারণে অাক্ষেপ এর পথে প্রকাশ হয়ে পড়ে। সরল উক্তি যখন প্রকাশ হয় তখন তাৎক্ষণিকভাবে বক্তার সততা ও দেশপ্রেম অনেক উচুতে অবস্থান করে। এ জাতির অধিকাংশ বিদ্যান রাজনৈতিক সরল উক্তির মর্ম, মর্যাদা,গুরুত্ব ইত্যাদি কোনটাই বুঝতে পারেনা। সেটি বুঝানোর চেষ্টাটা অামি শুরু করি। 
রাজনৈতিক সরল উক্তি কাকে বলে?
রাজনৈতিক সরল উক্তি তাকেই বলে কোন ঘটনা বা বিষয়কে কেন্দ্র করে ব্যাপক জনস্বার্থের দিকে তাকিয়ে বা লক্ষ্য করে বাস্তব নির্ভর এমন এক ""সত্য ''কে উপস্থাপন করা যা বক্তার বিপক্ষে চলে যায়। সরল উক্তি কখনো বক্তার অনুকূলে থাকেনা। সরল উক্তি অত্যান্ত গুরুত্বপূর্ণ এবং শিক্ষনীয়,।সরল উক্তি হচ্ছে এক ধরনের উৎকৃষ্ট অাক্ষেপ ও স্বীকারোক্তি। সরল উক্তি নিয়ে টানা হেচড়া করা খুবই অভদ্রতা ও অসৌজন্যমূলক। সরল উক্তিকে সম্মান জানাতে হয়। কিন্তু অামাদের রাজনৈতিক কালচার খুবই নোংরা, তাই সরল উক্তির মর্যাদা এখানে কখনো প্রতিষ্ঠিত হতে পারছেনা। সরল উক্তিকে সবার সরলভাবে দেখা উচিত, কিন্তু এখানে সেটা খুবই বক্রভাবে দেখা হয়। বিধায় এখানে কল্যানকর সরল উক্তি প্রকাশের প্রথাটি অবরুদ্ধ। তারপরও নাহিদ এর মত কেউ কেউ প্রচন্ড অাবেগতাড়িত হয়ে অাক্ষেপ বশে সততা ও দেশপ্রেমের ভিত্তিতে ব্যপক জনস্বার্থে এ ধরনের সরল উক্তি প্রকাশ করে থাকে। এজন্য শিক্ষামন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।
মন্ত্রী কেন ঐ কথা বললেন বা নিজেকে চোর বললেন? এর কারণ হচ্ছে জনস্বার্থে মন্ত্রী অনেক চেষ্টা করে প্রশ্ন ফাস সহ অনেক কিছু ঠেকাতে পারেননি। অবশেষে তিনি বুঝতে পারলেন তার অধ:স্তন অফিসাররা তার কথামত চলছেনা এবং চলার সম্ভাবনাও নেই। কারণ এরা অনিয়মের শক্ত চেইনে অাবর্তিত । অফিসারদের এ দূরাবস্থা তাকে ক্ষুদ্ধ ও হতাশ করেছে। জনস্বার্থ রক্ষার জন্য বদ্ধপরিকর মন্ত্রী নিজের বিবেকের জবাবদিহিতায় পতিত হয়ে জনসম্মুখে অফিসারদের কুকীর্তি প্রকাশ করাকে অার দমন করতে পারেনি। কিন্তু শুধু যদি অফিসারদের কথা বলে তাহলে তা ব্যপক সমালোচনায় পতিত হয়ে প্রকৃত সত্য ধামাচাপা পড়ে যাবে, এছাড়া অধ:স্তন অফিসারদের দায় দায়িত্ব তার কাধেও কিছুটা অাসে। তাই তিনি প্রকৃত সত্য তুলে ধরতে যেয়ে নিজের কাধেও দোষ চাপিয়ে নিয়ে বলেছেন "'অফিসার চোর, অামিও চোর। সত্য প্রকাশ করে জনস্বার্থ সচেতনতার একটি বিশাল মানসিকতা ঐ সংলাপে ফুটে উঠেছে, অার সেটা দেখার মত মানসিকতার অভাবে অনেকে বিরুপ সমালোচনায় মেতে উঠেছে যা খুবই অন্যায় ও রাজনৈতিক শিষ্টাচার বহির্ভূত।
এখানে শুধু পায়ে চলা পথই শুধু অপরিচ্ছন্ন নয় বরং জীবন চলার প্রতিটি পথে নোংরামি ছড়ানো যার দুর্গন্ধ এড়ানো যায়না।
লেখক: সমাজ বিশ্লেষক...


« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
সম্পাদক ও প্রকাশক: নাজমুল হক শ্যামল
দৈনিক নতুন সময়, বাড়ি ৭/১, রোড ১, পল্লবী, মিরপুর ১২, ঢাকা- ১২১৬
ফোন: ৫৮৩১২৮৮৮, ০১৯৯৪ ৬৬৬০৮৯, ইমেইল: newsnotunsomoy@gmail.com
Developed & Maintainance by i2soft